ফ্ল্যাগশিপ স্পেসিফিকেশন আর অ্যাফোর্ডেবল দামের মধ্যে স্মার্টফোন চিন্তা করলেই প্রথমেই আসে ওয়ানপ্লাস এর কথা। কারণ সংস্থাটি শুরু থেকেই তাদের ইউজারদের অ্যাফোর্ডেবল প্রাইজে ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন তৈরি করে আসছে। বিশেষ করে গত বছর রিলিজ হওয়া ওয়ানপ্লাস নর্ড গ্লোবাল মার্কেটে বেশ সাড়া ফেলেছিল, যদিও স্মার্টফোনটিতে ক্যামেরা ও ব্যাটারি নিয়ে বেশ কিছু সমালোচনা শুনতে হয়েছে ওয়ানপ্লাসকে। তবে জানা যাচ্ছে সংস্থাটি এই স্মার্টফোনটির সকল সমালোচনাকে উপেক্ষা করে  ওয়ানপ্লাস নর্ড সিরিজের পরবর্তী ডিভাইস নিয়ে কাজ করছে।

যার ফলস্বরূপ চলতি মাসের ২২ তারিখে অর্থাৎ ২২ জুলাই ওয়ানপ্লাস নর্ড ২ বাজারে রিলিজ হতে পারে। ওয়ানপ্লাসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা পিট লউ ওয়ানপ্লাসের ফোরামে একটি চিঠি পোস্ট করেছেন, তিনি জানিয়েছেন ওয়ানপ্লাস নর্ড ২০২০ বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠাই সংস্থাটি নর্ড সিরিজে কাজ করছে এবং চলতি মাসের ২২ তারিখে ইউরোপ এবং ভারতের বাজারে নতুন ওয়ানপ্লাস নর্ড ২, ৫জি লঞ্চ করা হবে। জানা গেছে গত বছরের ওয়ানপ্লাস নর্ড এর ক্যামেরা ও ব্যাটারি নিয়ে সমালোচনার পর সংস্থাটি ওয়ানপ্লাস নর্ড ২ এর ক্যামেরার ক্ষেত্রে বেশ কিছু নতুন ফিচার নিয়ে এসেছে। যেমন, ভিডিও রেকর্ড করার সময় লাইভ এইচডিআর সাপোর্ট, ফটো ডিটেইলস বাড়ানোর জন্য আলাদা সেটিংস, সাথে ২২টি আলাদা আলাদা ফিল্টার অটোমেটিক এপ্লাই, এবং নতুন DOL-HDR (“Digital OverLap”) ফিচার।

ডিভাইসটির পেছনে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রাখা হয়েছে, যেখানে একটি ৫০ MP মেইন সেন্সর, এবং এটির পাশাপাশি একটি ৮ MP আল্ট্রা ওয়াইড সেন্সর, ও একটি ২ MP ম্যাক্রো সেন্সর। এছাড়াও সেলফি শুটার হিসেবে থাকছে ৩২ MP ওয়াইড সেন্সর ও ৮ MP আল্ট্রা ওয়াইড সেন্সর, যার সাথে থাকছে HDR সাপোর্ট। নতুন ওয়ানপ্লাস নর্ড ২ তে শক্তিশালী ৫ জি সাপোর্টেড চিপসেট মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ১২০০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে, যা বর্তমান সময়ে মিডিয়াটেকের সবচেয়ে শক্তিশালী চিপসেট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

এছাড়াও ৬.৫২-ইঞ্চির ১০৮০ × ২৪০০ রেজুলেশনের ও ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট সাপোর্টেড এমোলেড ডিসপ্লে এবং ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট ও ৪৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি। নতুন এই ডিভাইসটি দুটি ভেরিয়েন্টে দেখা যাবে, একটা ৮ + ১২৮ জিবি, অপরটা ১২ + ২৫৬ জিবি। ধারণা করা হচ্ছে নতুন ওয়ানপ্লাস নর্ড ২ এর এন্ট্রি প্রাইজ ৩৯৯ ডলার হতে পারে।

This content is from WIREBD.