গুগল ক্রোমের জন্য ৫ টি বেস্ট এক্সটেনশন [২০২১]

 

বর্তমানে ওয়েব ব্রাউজার আমাদের ইন্টারনেট লাইফের সবথেকে বড় পার্ট। আমরা ইন্টারনেটের প্রাইয় অধিকাংশ সময়ই কাটিয়ে থাকি কোন না কোন ওয়েব ব্রাউজারে। আর ওয়েব ব্রাউজারের মধ্যে এখনো পর্যন্ত সবথেকে জনপ্রিয় ব্রাউজার হচ্ছে গুগল ক্রোম। গুগলের সার্ভিসগুলোর সাথে টাইট ইন্টিগ্রেশন এবং সবথেকে বড় এক্সটেনশন স্টোর থাকার কারণেই মূলত এটি এত জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তবে গুগলের এর হিউজ এক্সটেনশন স্টোরে কিন্তু খুব বেশি ব্রাউজার এক্সটেনশন নেই যেগুলো সত্যিকারেই ইউজফুল।

আজকে এমন ৫ টি ক্রোম এক্সটেনশন নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছি, যেগুলো আপনার ইন্টারনেট ওয়ার্কফ্লো এবং ব্রাউজিং এক্সপেরিয়েন্সকে আরেকটু বেশি প্রোডাক্টিভ করে তুলতে সাহায্য করবে। আমি এখানে মোস্ট পপুলার এক্সটেনশন যেমন Lastpass, Adguard, Grammarly এগুলোকে বাদ দিয়েছি। মূলত এমন কয়েকটি ভালো ক্রোম এক্সটেনশন নিয়ে কথা বলছি, যেগুলোর ব্যাপারে হয়তো অনেকেই জানেন না। আর হ্যা, এই সব এক্সটেনশনগুলো শুধুমাত্র ক্রোম নয়, ক্রোমিয়াম ইঞ্জিনের যেকোনো ব্রাউজারে (ব্রেভ, অপেরা, মাইক্রোসফট এজ) সাপোর্ট করবে। আর ভুমিকা না করে সরাসরি টপিকে আসা যাক।

The Great Suspender

আপনাদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যারা ইন্টারনেট ব্রাউজ করার সময় বা কোন কাজ করার সময় একের পর এক ক্রোম ট্যাব খুলতেই থাকেন কিন্তু ডেক্সটপ অফ করার আগে পর্যন্ত ভুলেও একটাও ট্যাব ক্লোজ করেন না। যদিও দেখা যায় যে আপনার অ্যাকচুয়ালি দরকার হচ্ছে একটি বা দুটি ট্যাব, কিন্তু আপনি পরপর ১০ টি ব্রাউজার ট্যাব খুলে রেখেছেন যেগুলো আপনার কোন দরকারই নেই। আর গুগল ক্রোম এমনিতেই বেশি র‍্যাম ইউজ করার জন্য কুখ্যাত। তাই এমন ১০-১২ টা ট্যাব ওপেন করে রাখলে এমনিতেই আপনার প্রায় সব র‍্যামই গুগল ক্রোম একাই ইউজ করবে। এর ফলে আপনার ডেক্সটপের পারফরমেন্স খারাপ হবে। তবে এই এক্সটেনশনটি ব্যাবহার করলে আপনাকে এই নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না।

এই এক্সটেনশনটি আপনি যেসব ট্যাব অ্যাকচুয়ালি ব্যাবহার করছেন, যেগুলো বাদে আপনার ওপেন করা বাকি ট্যাবসগুলোকে ডিজেবল করে দেবে যাতে সেগুলো আর কোন মেমরি ইউজ করতে না পারে। এর ফলে ক্রোম অনেক কম র‍্যাম ব্যাবহার করবে। তবে হ্যা, এই এক্সটেনশনটি ব্যাবহার করলে আপনি অন্যান্য ট্যাবগুলো থেকে কোন আপডেট বা কোন নোটিফিকেশন পাবেন না, যেহেতু সেগুলো ডিজেবল করে দেওয়া হয়েছে। আপনি যদি ম্যানুয়ালি অন্যান্য ট্যাবগুলো ওপেন করেন, তাহলে আপনাকে ট্যাবটি রিফ্রেশ করতে হবে এবং এরপর যেকোনো আপডেট দেখতে পারবেন। এটা নিয়ে যদি আপনার কোন সমস্যা না থাকে, এবং আপনার যদি অনেকগুলো ট্যাব ওপেন করে রাখার অভ্যাস থাকে, তাহলে এই এক্সটেনশনটি আপনার জন্য পারফেক্ট। এছাড়াও এই এক্সটেনশনটির সেটিংসে আপনি আরও অনেক অপশন পাবেন যেগুলো নিজের ইচ্ছামতো কাস্টোমাইজ করে নিতে পারবেন।

THE GREAT SUSPENDER

Typio Form Recovery

আমাদের সবার সাথেই লাইফে কখনো না কখনো এমন হয়েছে যে, আমরা কোন ওয়েবসাইটে কোন দরকারি ফর্ম ফিলআপ করছি। অনেকটা সময় নিয়ে ভালোভাবে ফর্মটি ফিলআপ করার পরে যখন Submit করলাম, তখন কোন সমস্যা বা কোন র‍্যান্ডম এররের কারণে ব্রাউজার ট্যাবটি রিফ্রেশ হলো বা কোন কারণে ব্রাউজারে ব্যাক বটনটি প্রেস করার দরকার পড়লো। এরপর আবার ফর্মের পেজে ফিরে এসে দেখা গেল যে ফর্মে এত সময় নিয়ে আমরা যা যা টাইপ করেছিলাম তার কিছুই আর ফর্মে সেভ করা নেই। তখন আবার ফর্মটি শুরু থেকে নতুন করে ফিলআপ করতে হয়। যদি ফর্মটি অনেক বড় হয়, তাহলে এই সমস্যাটা খুবই ফ্রাস্ট্রেটিং হয়ে দাঁড়ায়।

তবে এই ক্রোম এক্সটেনশনটি ব্যাবহার করলে আপনাকে কখনোই আর এই ধরনের কোন সমস্যায় পড়তে হবে না। এই এক্সটেনশন ইন্সটল করা থাকলে আপনার টাইপ করা ফর্ম ডাটা পেজ রিফ্রেশ করার পরেও আপনার ব্রাউজারে সেভ করা থাকবে। আপনি সম্পূর্ণ ফর্ম পূরণ করার পরে সাবমিট করার আগে যদি কোন কারণে রিফ্রেশ করেন, তাহলে রিফ্রেশের পরে ফর্মের পাশে একটি ক্লক আইকন দেখতে পাবেন, এই ক্লক আইকনে ক্লিক করলই আপনার আগে টাইপ করা টেক্সটগুলো দেখতে পাবেন এবং এক ক্লিকেই আপনার আগের ইনপুট করা টেক্সট আবার ফিলআপ করে নিতে পারবেন। এই এক্সটেনশনটিও অত্যন্ত কাস্টোমাইজেবল। আপনি এক্সটেনশন সেটিংস থেকে নিজের ইচ্ছামতো কাস্টোমাঈজ করে নিতে পারবেন এক্সটেনশনটি।

TYPIO FORM RECOVERY

Web Of Trust

এটি একটি সিকিউরিটি এক্সটেনশন। ক্রোম ওয়েবস্টোরে আরো অনেক সিকিউরিটি এক্সটেনশন আছে। অন্যগুলোও ইউজলেস নয়, তবে আমার কাছে এটি বেটার মনে হয়েছে। এই এক্সটেনশনটি আপনার ভিজিট করা প্রত্যেকটি ওয়েবসাইট সেফ কিনা, ওয়েবসাইটে কোন ম্যালওয়্যার আছে কিনা, ওয়েবসাইটটির বিরুদ্ধে কখনো কোন অভিযোগ করা হয়েছে কিনা এবং ওয়েবসাইটটির পূর্বে কোন স্ক্যাম হিস্টোরি আছে কিনা এসব বিষয় বিবেচনা করে ওয়েবসাইটটির ব্যাপারে একটি ট্যাগ দেখাবে আপনাকে। সবুজ রঙ এর ট্যাগ মানে ওয়েবসাইটটি সেফ এবং রেড ট্যাগ মানে হচ্ছে ওয়েবসাইটটি সেফ নয়, খুবই সিম্পল।


Domain and Web Hosting in BD


Domain and Web Hosting in BD

এই এক্সটেনশনটি সবথেকে বেশি কাজে আসে গুগল সার্চ করার সময়। আপনি গুগলে যেকোনো কিছু সার্চ করলে সার্চ রেজাল্টের পাশে একটি ডোনাট শেপের ট্যাগ দেখতে পারেন। যদি ওই ট্যাগটি সবুজ রঙ এর হয়, তাহলে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করা নিরাপদ। আর যদি লাল হয়, তাহলে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করা আপনার উচিত হবে না। এর ফলে যেকোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করার আগে গুগল সার্চ রেজাল্ট থেকেই আপনি জানতে পারবেন যে ওয়েবসাইটটি ভিজিট করা আপনার জন্য নিরাপদ কি না। এছাড়াও আপনি যদি কখনো কোন আনসেফ ওয়েবসাইটে ভিজিট করেন, এক্সটেনশনটি শুরুতেই আপনাকে একটি পপআপ দিয়ে জানিয়ে দেবে যে এই ওয়েবসাইটটি সেফ নয়।

WEB OF TRUST

Custom Cursor

এটি বেশ মজার একটি ক্রোম এক্সটেনশন এবং এটি বেশ জনপ্রিয়। নাম শুনেই ধারনা করতে পারছেন যে এটির কাজ কি। এই এক্সটেনশনটি ব্যাবহার করে আপনি ক্রোম ব্রাউজারে থাকা-কালীন সময়ে আপনার মাউস কার্সর এর স্টাইল চেঞ্জ করতে পারবেন। পেপারপ্লেন স্টাইল থেকে শুরু করে অ্যারো, পেন্সিল এবং এমনকি বিভিন্ন কার্টুন ক্যারেকটারও ব্যাবহার করতে পারবেন কার্সর হিসেবে। নিচের স্ক্রিনশটেই দেখতে পারবেন যে কত প্রকারের কার্সর প্যাক অলরেডি আছে এই এক্সটেনশনে।


Domain and Web Hosting in BD

এছাড়া আপনার আরও কার্সর প্যাক দরকার হলে এই এক্সটেনশনটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে থাকা লাইব্রেরি থেকে আরও অনেক মাউস কার্সর স্টাইল ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আবার আপনি চাইলে এমনও করে নিতে পারবেন যে, আপনার পছন্দের কয়েকটি কার্সরগুলো কিছু সময় পরপর অটোমেটিক্যালি চেঞ্জ হতে থাকবে। তাই কাস্টোমাইজেশন ফ্রিকদের জন্য বেশ মজার একটি এক্সটেনশন এটি।

CUSTOM CURSORS

Select To Translate

নাম শুনেই বুঝতে পারছেন যে এটি একটি  ট্রান্সলেশন টুল। তবে ট্রান্সলেট করার জন্য ক্রোম ওয়েব স্টোরে আরও অনেক অনেক এক্সটেনশন আছে। এমনকি গুগলের নিজস্ব একটি এক্সটেনশনও আছে। তবে অন্যান্য এক্সটেনশন আমার কাছে এত সহজ মনে হয়নি এটির তুলনায়। আর গুগল ট্রান্সলেট এর অফিসিয়াল এক্সটেনশনটি খুবই আউটডেটেড এবং এটির ইউজার ইন্টারফেস খুবই বোরিং। আর এই Select To Translate এক্সটেনশনটির কোন ইউজার ইন্টারফেসই নেই। এটি জাস্ট গুগল ট্রান্সলেটের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যাওয়ার একটি শর্টকাট হিসেবে কাজ করে। আপনাকে শুধুমাত্র এক্সটেনশনটি ইন্সটল করার পরে সেট করে দিতে হবে যে আপনার ন্যাটিভ ল্যাঙ্গুয়েজ কোনটি।

এরপর যেকোনো ওয়ার্ড বা যেকোনো বাক্য আপনি যদি সিলেক্ট করে এরপর মাউসে রাইট ক্লিক করে কনটেক্সট মেনু ওপেন করেন, তাহলে আপনার সিলেক্ট করা টেক্সটটি ট্রান্সলেট করার অপশন পেয়ে যাবেন। সেখানে ক্লিক করলে সরাসরি একটি নতুন ট্যাব ওপেন হয়ে গুগল ট্রান্সলেট ওয়েবসাইটে নিয়ে গিয়ে আপনার সিলেক্ট করা টেক্সটটির বাংলা ট্রান্সলেশন দেখানো হবে। আপনি নিজেই ধারনা করতে পারছেন যে এই সম্পূর্ণ কাজটি ম্যানুয়ালি করতে গেলে কতটা সময় নষ্ট হতো। তাই যাদের প্রায়ই ট্রান্সলেশনের দরকার হয়, তাদের জন্য এটিকে মাস্ট-হ্যাভ এক্সটেনশন বলে মনে করি আমি।

SELECT TO TRANSLATE