অ্যান্ড্রয়েডের জন্য কয়েকটি এডিবি এবং ফাস্টবুট কমান্ডস যা আপনার জানা প্রয়োজন!

 

আপনি যদি হার্ডকোর অ্যান্ড্রয়েড ইউজার হয়ে থাকেন এবং অ্যান্ড্রয়েড রুটিং, মডিং, কাস্টোমাইজিং, কাস্টম রম ইত্যাদি নিয়ে অনেক বেশি ঘাটাঘাটি করেন, তাহলে হয়তো আপনি আজকের পোস্টের অনেক কিছুই অলরেডি জানেন। তবে সাধারন অ্যান্ড্রয়েড ইউজাররা প্রায় কেউ জানেনই যা যে এডিবি বা ফাস্টবুট কমান্ডস কি এবং কিভাবে ব্যাবহার করতে হয়। না জানারই কথা। কারন, এসব ক্ষেত্রে আপনি যদি না জানেন যে আপনি অ্যাকচুয়ালি কি করছেন, তাহলে অনেকসময় আপনার ডিভাইসটি ডেড হয়ে যাওয়ারও সম্ভাবনা থাকে এসব করার সময়।

যাইহোক, যেমনটা বলেছি, আজকে অ্যান্ড্রয়েডের জন্য কয়েকটি এডিবি‌/ফাস্টবুট কমান্স নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি যা হয়তো অনেক এক্সপার্ট অ্যান্ড্রয়েড ইউজাররাও জানতেন না। আর যদি আপনি এডিবি/ফাস্টবুট এসবের নাম এই প্রথম শুনে থাকেন, তাহলে আপনি এই পোস্টটি ফলো করবেন কিনা আগেই ভেবে দেখুন। কারণ, অনেকসময় কোনোকিছু ভুল করলে আপনার ডিভাইসের অনেকরকম ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যদিও আমি সেসব বিষয় ভেবেই লিখছি, তবুও যা যা ট্রাই করবেন, নিজ দায়িত্বে করুন। কোনোকিছু ভুল করে বা ভুল ভাবে করায় আপনার ডিভাইসের কোনো ক্ষতি হলে, ওয়্যারবিডি কোনভাবেই দায়ী নয়।

এডিবি এবং ফাস্টবুট কি?

আপনি যদি এক্সপার্ট হয়ে থাকেন, তাহলে এসব পার্ট স্কিপ করে পোস্টের শেষের দিকে চলে যেতে পারেন। তবে যদি না জেনে থাকেন, তাহলে পড়তে থাকুন।

এডিবি এবং ফাস্টবুট হচ্ছে কিছু ইউটিলিটি বা টুলস, যা আপনার অ্যান্ড্রয়েডটি ইউএসবির সাহায্যে কোনো ডেস্কটপে কানেক্টেড থাকা অবস্থায় আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের ওপরে কিছু এক্সট্রা সিস্টেম-লেভেল কন্ট্রোলস দেয়, যা সাধারনভাবে আপনি অ্যান্ড্রয়েডের সেটিংসে পাবেন না। আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি সচল থাকা অবস্থায় আপনি ডেস্কটপে কানেক্ট করে এডিবি কমান্ডস ব্যাবহার করতে পারবেন। আর আপনার ডিভাইসটি অফ করে অন করার সময় পাওয়ার এবং ভলিউম ডাউন বাটন একসাথে ক্লিক করে ফাস্টবুট মোডে ঢুকে তারপরে ফোন ডেস্কটপে কানেক্ট করলে ফাস্টবুট কমান্ডস ব্যাবহার করতে পারবেন।

এডিবি কমান্ডস সাধারনত ব্যবহার করা হয় ডিভাইসের ইন্টারনাল সিস্টেমের ওপরে আরও বেশি কনট্রোল পেতে এবং কিছু স্পেশাল সেটিংস অ্যাক্সেস করতে, যেগুলো আপনি কখনোই অ্যান্ড্রয়েডের নরমাল সেটিংসে অথবা ডেভেলপার সেটিংসে খুঁজে পাবেন না। আর ফাস্টবুট কমান্ডস ব্যাবহার করা হয় আরও বেশি কনট্রোল পাওয়ার জন্য। যেমন- ইন্টারনাল স্টোরেজ ক্লিয়ার করা, কাস্টম রম ইন্সটল করা, কাস্টম রিকভারি ইন্সটল করা ইত্যাদি। তাই ডিভাইস রানিং থাকা অবস্থায় ফাস্টবুট কমান্ডস দেওয়ার কোনো সুযোগই নেই। অ্যান্ড্রয়েড সম্পর্কে যদি আপনার জ্ঞান খুব বেশি না থাকে, তাহলে ফাস্টবুট মোডে ঢুকে কিছু না করাটাই ভালো।


Domain and Web Hosting in BD

যেভাবে সেটাপ করবেন

এখন যেহেতু আপনি জানেন যে এডিবি এবং ফাস্টবুট কি এবং কেন ব্যাবহার করা হয়, এবার চাইতেই পারেন একটু ট্রাই করে দেখতে যে কি কি করা যেতে পারে এসব কমান্ডস ব্যাবহার করে। আবারও বলছি, অ্যান্ড্রয়েড সম্পর্কে অজ্ঞ হলে এসব স্কিপ করুন, আপনার এসব না জানলেও চলবে।

যাইহোক, প্রথমত আপনাকে আপনার ডেস্কটপে বা ল্যাপটপে এডিবি এবং ফাস্টবুট ক্লায়েন্ট এবং ড্রাইভারস ইন্সটল করতে হবে। সেটাপ করার জন্য নিচের লিংক থেকে Minimal ADB and Fastboot এর সেটাপ ফাইলটি ডাউনলোড করুন এবং ইন্সটল করুন। আমি আশা করবো, ডেস্কটপে কিভাবে প্রোগ্রামস ইন্সটল করতে হয় তা আপনি অবশ্যই জানেন।

ইন্সটল করা হয়ে গেলে এবার আপনার অ্যান্ড্রয়েডকে এডিবি এবং ফাস্টবুট কমান্ডের জন্য রেডি করার পালা। চলে যান আপনার ডিভাইসের সেটিংস এর About Phone সেকশনে। এখানে গিয়ে Build Number অপশনে ৫-৭ বার পরপর ক্লিক করতে থাকুন। যদি শাওমি ফোন ইউজ করেন, তাহলে Build Number এ ক্লিক না করে ক্লিক করবেন Miui Version অপশনটিতে। ৫-৭ বার ক্লিক করলেই দেখবেন বলে দেওয়া হবে You’re now a developer। বাহ, এতো সহজ অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার হওয়া!

যাইহোক, এবার আপনার ডিভাইসের মেইন সেটিংস মেনুর Additional Settings অপশনে নতুন আরেকটি ক্যাটাগরি দেখতে পাবেন যার নাম Developer Options বা এই ধরনেরই কিছু। চলে যান এই ক্যাটাগরিতে। এবার এখান থেকে USB Debugging অপশনটি খুঁজে বের করে এটায় টিক মার্ক দিয়ে দিন, অর্থাৎ এনাবল করে দিন। এনাবল করার সময় আপনার ডিভাইস কোনো পপ-আপ দিয়ে কিছু বলতে চাইলে অ্যালাউ করে দিন।

এবার এডিবি কানেক্ট করার জন্য আপনার ডেস্কটপে ফোনটিকে কানেক্ট করুন ইউএসবি ক্যাবলের সাহায্যে। কানেক্ট করার পরে এবার আপনার ইন্সটল করা এডিবি ফাস্টবুট ক্লায়েন্টটি ওপেন করুন ডেস্কটপ আইকন থেকে। কমান্ড প্রম্পট এর মতো কালো ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। এবার এখানে টাইপ করুন adb devices। টাইপ করার পরে দেখবেন আপনার ফোনে একটি পপআপ নোটিফিকেশন এসেছে যে আপনি আপনার ডেস্কটপকে ইউএসবি ডিবাগিং এর সাহায্যে আপনার ফোনের সিস্টেম অ্যাক্সেস দিতে চাচ্ছেন কি না। অবশ্যই চাচ্ছেন! তাই Alow ক্লিক করে পপআপ বন্ধ করে দিন।

এরপর সবকিছু ঠিক থাকলে আপনি ওই কমান্ড প্রম্পটের মতো জায়গায় আপনার কানেক্টেড অ্যান্ড্র‍য়েডের একটি আইডি নাম্বার দেখতে পাবেন। যদি না পান, তাহলে adb devices কমান্ডটি আরও একবার ইন্টার করুন, এবার অবশ্যই দেখতে পাবেন আপনার কানেক্টেড ডিভাইসের আইডি নাম্বার। এডিবি কানেক্ট করা এইটুকুই।


Domain and Web Hosting in BD

আর ফাস্টবুট মোড কানেক্ট করার জন্য আপনার ফোনটি পাওয়ার অফ করতে হবে। এরপর অন করার সময় আপনার পাওয়ার বাটন এবং ভলিউম ডাউন বাটন একসাথে ধরে রাখতে হবে। এভাবে ধরে রেখে অন করলে আপনি স্ক্রিনের ওপরে Fastboot লেখা বা কোনো ধরনের ইলাস্ট্রেশন দেখতে পাবেন। এই অবস্থায় আপনার ফোনটি ডেস্কটপে আগের মতোই কানেক্ট করে fastboot devices কমান্ড ইন্টার করতে হবে। তাহলে ফাস্টবুট মোডে কানেক্ট করা ফোনটির আইডি নাম্বার দেখতে পাবেন। এক্ষেত্রে adb devices কমান্ড দিলে কিন্তু কাজ করবে না। আমি আবারো বলবো, রিস্ক নিতে না চাইলে ফাস্টবুট মোডে কিছুই করবেন না!

যা যা করতে পারবেন এডিবি এবং ফাস্টবুট কমান্ড ব্যাবহার করে

এবার আসা যাক মূল কথায়। এবার জানা যাক কয়েকটি এডিবি এবং ফাস্টবুট কমান্ড নিয়ে, যেগুলো আপনার কাজে আসতে পারে। এখানে বিগিনারদের জন্য বেসিক কমান্ডস এবং এক্সপেরিয়েন্সড ইউজারদের জন্যও কিছু কমান্ডস আছে যেগুলো হয়তো আপনি জানতেন না।


Domain and Web Hosting in BD

১। adb install [path to file] [path to folder] : এই কমান্ডটি ইন্টার করে আপনি আপনার ডেস্কটপে থাকা যেকোনো এপিকে ফাইল আপনার অ্যান্ড্রয়েডে অটোমেটিক্যালি ইন্সটল করতে পারবেন। এই কমান্ডটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপারদের অনেক কাজে আসতে পারে।

২। adb push [path to file] [path to folder] : এই কমান্ড ইউজ করে আপনি আপনার ডেস্কটপ থেকে যেকোনো ফাইল আপনার ফোনের লোকাল স্টোরেজে কপি করতে পারবেন। আর push এর জায়গায় pull লিখে আপনি এর উল্টোটাও করতে পারবেন।

৩। adb uninstall [package name]: এই কমান্ডটি ব্যাবহার করে আপনি অ্যান্ড্রয়েড থেকে যেকোনো অ্যাপ আনইন্সটল করতে পারবেম। শুধু ইন্সটল করা অ্যাপ নয়, আপনার ফোনের সিস্টেম অ্যাপসও আপনি আনইন্সটল করতে পারবেন এভাবে। তবে [package name] এর জায়গায় অ্যাপের নাম নয়, অ্যাপের প্যাকেজ নেম ইন্টার করতে হবে। যেমন- ফেসবুক অ্যাপের প্যাকেজ নেম com.facebook.katana। সেটিংস থেকে কোনো অ্যাপের অ্যাপ ইনফো অপশনে গেলেই সেই অ্যাপের প্যাকেজ নেম পেয়ে যাবেন।

৪। adb shell wm density [dpi] : এই কমান্ডটি ব্যাবহার করে আপনি আপনার ফোনের ডিসপ্লের পিক্সেল ডেনসিটি ইচ্ছামত কমাতে বা বাড়াতে পারবেন, যা অধিকাংশ অ্যান্ড্রয়েডেই ন্যাটিভলি দেওয়া হয়না। [dpi] এর জায়গায় আপনার ইচ্ছামত ডিপিআই ভ্যালু বসিয়ে ইন্টার করলেই ডিপিআই চেঞ্জ হবে।

৫। fastboot oem unlock : ফাস্টবুট মোড এই কমান্ডটি ইন্টার করে আপনার ফোনের বুটলোডার আনলক করতে পারবেন। ফোনে কাস্টম রিকভারি বা কাস্টম রম ইন্সটল করার কন্য বুটলোডার আনলক থাকা জরুরী। এর জন্য আপনার ফোনের ডেভেলপার অপশনে Oem Unlocking এনাবল থাকতে হবে। তাছাড়া আপনার ম্যান্যফ্যাকচারার চাইলে এই কমান্ডটি ব্লক করে রাখতে পারে। যেমন- শাওমি। আর হ্যা, এই ওয়েতে বুটলোডার আনলক করলে আপনার ডিভাইসের সব ডাটা ক্লিয়ার হয়ে যাবে। তাই সাবধান থাকবেন।

৬। fastboot -w : এই কমান্ডটি আপনার সম্পুর্ণ ডিভাইসের সকল ডাটা ক্লিয়ার করে দেবে। অর্থাৎ, ফাস্টবুট ব্যাবহার করে হার্ড রিসেট দেওয়ার কাজে ব্যাবহার করতে পারেন এই কমান্ডটি।

আবারো বলছি, এই কমান্ডগুলোর যেগুলোর আগে fastboot আছে এবং ফাস্টবুট মোডে করতে হয়, সেগুলো অ্যাভয়েড করার ট্রাই করুন, যদি আপনি একেবারে বেসিক অ্যান্ড্রয়েড ইউজার হয়ে থাকেন। এছাড়াও কাস্টম রম ফ্ল্যাশ করা, কাস্টম রিকভারি ফ্ল্যাশ করা ইত্যাদির জন্যও আরও অনেক ফাস্টবুট কমান্ডস আছে যেগুলো অ্যাডভান্সড ইউজাররা অলরেডি জানেন এবং যেগুলো বেসিক ইউজারদের আপাতত না জানলেও চলবে।


আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। কোনো প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন!